ফ্রিল্যান্সিং কি.?

ফ্রিল্যান্সিং হচ্ছে বর্তমান সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় একটি পেশা। সবচেয়ে জনপ্রিয় হওয়ার কারণ হচ্ছে, এটি একটি মুক্ত পেশা। আপনি যখন ইচ্ছা কাজ করতে পারবেন আবার যখন ইচ্ছা অবসর সময় কাটাতে পারবেন। আপনার কোন বস নেই, নেই আপনার কোন 9 টা থেকে 5 টা প্রতিদিন টাইম সিডিউল। আপনি চাইলে সকালেও কাজ করতে পারবেন চাইলে রাতেও কাজ করতে পারবে। তবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে আপনার যে বিষয়টি প্রয়োজন পড়বে, সেটি হল কোন নির্দিষ্ট একটি কাজ বা একাধিক কাজের উপর দক্ষতা। তাছাড়া যে দুটি বিষয় অবশ্যই প্রয়োজন সেটি হল আপনার ইন্টারনেট কানেকশন এবং একটি মোবাইল অথবা একটি ল্যাপটপ। অনেকেই হয়তো শুনে থাকবেন যে ফ্রিল্যান্সিং করার জন্য অনেক দামি



ল্যাপটপ বা কম্পিউটার দরকার। কিন্তু এটা সম্পূর্ণ একটা ভুল সিদ্ধান্ত বা কথা। কারণ বর্তমানে মোবাইলের মাধ্যমে ফেসবুক, ব্লগার এবং ইউটিউব থেকে প্রচুর পরিমানে টাকা ইনকাম করা যায় এবং এই কাজগুলো কিন্তু ফ্রিল্যান্সিংয়ের অন্তর্ভুক্ত। সুতরাং আপনার যদি একটি এন্ড্রয়েড মোবাইল ফোন থাকে তাহলে আপনি শুরু করতে পারবেন ফ্রিল্যান্সিং। মূলত সার্বজনীন অর্থে বলতে গেলে, ইন্টারনেট কানেকশনের মাধ্যমে বিশ্বের যেকোনো প্রান্ত থেকে একজন ব্যক্তির কাজ বিশ্বের অন্য এক প্রান্ত থেকে অন্য এক ব্যক্তির করে দেওয়াকেই ফ্রিল্যান্সিং বলে। আপনি যদি ফ্রিল্যান্সিং শিখতে চান অবশ্যই আপনাকে কিছু কাজের উপর দক্ষতা অর্জন করতে হবে, যেমন অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ ডেভেলপমেন্ট, ওয়েব ডিজাইন এন্ড ডেভেলপমেন্ট, ডিজিটাল মার্কেটিং, ব্লগিং বা ইউটিউব, গ্রাফিক্স ডিজাইন সহ আরো অনেক সেক্টর রয়েছে যেগুলোর ওপর আপনি দক্ষতা অর্জন করার মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করতে পারেন। বাংলাদেশে এমন একটি প্রতিষ্ঠান রয়েছে যার নাম হচ্ছে "BlendDo IT" যারা অনলাইন ভিত্তিক ভাবে খুব কম মূল্যে আপনাকে এই সকল দক্ষতা অর্জনে সহায়তা করবে। বর্তমানে ১০ হাজারেরও অধিক স্টুডেন্ট এউ প্ল্যাটফর্ম থেকে দক্ষতা অর্জন করার মাধ্যমে এখন সফলভাবে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করেছে।

No comments

Theme images by enot-poloskun. Powered by Blogger.